মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২ ইং         ০১:৩৮ অপরাহ্ন
  • মেনু নির্বাচন করুন

    উখিয়ার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিল বিদ্রোহীদের বাঁধার মুখে


    প্রকাশিতঃ 14 May 2022 ইং
    শেয়ার করুনঃ

    নিজস্ব প্রতিবেদকঃ


    কক্সবাজারের উখিয়ার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের বিদ্রোহীদের বাধার মুখে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিল।


    শুক্রবার রাতে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক রাসেল চৌধুরী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্টাটাস দেওয়া হয়েছে। যা হুবহু তুলে ধরা হলো "উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নে বিদ্রোহীদের বাধার মুখে পূর্বনির্ধারিত জামতলী প্রাইমারী স্কুল, মরিচ্যা পালং উচ্চ বিদ্যালয় ও মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বালিকা বিদ্যালয়ে মিটিং করার স্থান পাচ্ছে না আওয়ামী লীগ!!"


    রাসেল চৌধুরী স্টাটাসের পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইকবাল ফরহাদ নীলয় লিখেছেন "উখিয়া হলদিয়া পালং ইউনিয়নে বিদ্রোহী চেয়ারম্যানের বাধার মুখে আওয়ামীলীগ...

    কক্সবাজার জেলা সাংগঠনিক টিমের পূর্বনির্ধারিত জামতলী প্রাথমিক বিদ্যালয়, মরিচ্যা পালং উচ্চ বিদ্যালয়, মুক্তিযোদ্ধা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মিটিং করার জন্য স্থান না দেওয়ার জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের ফোন করে হুমকি দিচ্ছে নৌকার বিদ্রোহী'রা।"


    নুরুল ইসলাম বিজয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন "ধিক্কার জানাই সেই বিদ্রোহীদের!

    উখিয়া হলদিয়া পালং ইউনিয়নে বিদ্রোহী চেয়ারম্যানের বাধার মুখে আওয়ামী লীগ..! 

    তৃণমূল পর্যায়ে সুসংগঠিত করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর নির্দেশে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক টিমের পূর্বনির্ধারিত জামতলী প্রাথমিক বিদ্যালয়, মরিচ্যা পালং উচ্চ বিদ্যালয়, মুক্তিযোদ্ধা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মিটিং করার জন্য প্রস্তুতি নিলেও বিদ্রোহীদের বিভিন্ন বাঁধা ও হুমকির সম্মুখীন হতে হচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষাকবৃন্দ ও আওয়ামী লীগ ! সেই সাথে ধিক্কার জানাই"৷


    এবিষয়ে হলদিয়াপালং ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও হলদিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কমিটির সদস্য অধ্যক্ষ শাহ আলম চৌধুরী বলেন, শনিবার (১৪ মে) হলদিয়াপালং ইউনিয়নে ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিল নির্ধারিত করা হয়েছে মরিচ্যা মুক্তিযোদ্ধ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে। বৃহস্পতিবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিতে কাউন্সিলের জন্য হলরুম না দেওয়ার জন্য ফোন দিয়ে হুমকি দেন হলদিয়াপালং ইউনিয়ন বিদ্রোহী চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস চৌধুরী। পরে আমরা সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে মরিচ্যা পালং উচ্চ বিদ্যালয়ে করার প্রস্তুতি নেওয়া হলে সেখানেও বাধা দেয় চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস চৌধুরী৷


    তিনি আরও বলেন, রাত ১১ টায় উখিয়া-টেকনাফ সাবেক সাংসদ আব্দুর রহমান বদি হলদিয়াপালং সাংগঠনিক টিমের সাথে বসে আগামী কালের কাউন্সিল একটি ক্লাবে করা হবে৷ ইতিমধ্যে হলদিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক টিম জেলা আওয়ামী লীগ,  উপজেলা আওয়ামী ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থাকে অবহিত করেছি৷


    উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন, উখিয়ার অন্যান্য ইউনিয়নের মধ্যে হলদিয়াপালং ইউনিয়নের বিদ্রোহীদের সংখ্যা বেশি৷ গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যারা নৌকায় বিরোধিতা করেছে তাদেরকে আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হবে না বলে ঘুষান দিয়েছে সরকার।

    তিনি আরও বলেন, যারা কাউন্সিল বাধা দিচ্ছে তারা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে৷

    মুক্তি / আকাশ


    আপনার মন্তব্য লিখুন
    © 2022 muktir71news.com All Right Reserved.
    Developed By Skill Based IT